পর্যটন সাংবাদিকদের সম্মাননা দিবে বিটিইএ

0
172

বিটিইএ ট্যুরিজম জার্নালিস্ট সম্মাননা ২০২১

ভুমিকাঃ ইংরেজিতে একটি কথা চালু আছে, “ট্র্যাভেলার ইজ আ পিওর কনজিউমার”; অর্থাৎ ভ্রমণকারীরাই পর্যটনের প্রধান নিয়ামক। কিন্তু ভ্রমণ অনেকেই করে থাকলেও, তারা সকলেই পর্যটক নন; এবং সব পর্যটক লিখতে জানেন না। সে কারণে ভ্রমণ বিষয়ক সাংবাদিকতার গুরুত্ব ও পরিধি অনেক ব্যাপক।
ভ্রমণ বিষয়ক ভালো লেখা তৈরির কাজটি কোন কাকতালীয় বা দৈব ঘটনা নয়। সার্থক ভ্রমণ রচনা প্রকৃত পক্ষে লেখকের প্রখর ব্যক্তিত্ব, অভিজ্ঞতা ও রসবোধকেই প্রকাশ করে না; বরং গুরুত্ব সহকারে পাঠাকের সামনে কিছু তথ্যও তুলে ধরে। ভ্রমণকাহিনীটি পড়ার সময় পাঠক লেখকের সাথেই মূলত ভ্রমণ করেন; তাই লেখক কে তার লেখার মধ্য দিয়ে নিজেকে একজন ইন্টারেস্টিং ও আনন্দদায়ক ভ্রমণ সঙ্গী হিসাবে পাঠকের কাছে আকর্ষণীয় ভাবে তুলে ধরতে হয়। এবার ভাবুন একজন ভ্রমণ বিষয়ক সাংবাদিক শুধু সাংবাদিক’ই নন; ভালো লেখকও বটে।
দেশের আইন-শৃঙ্খলা ও পরিস্থিতি কোন মুহূর্তে সবচেয়ে ভালো অবস্থানে রয়েছে। কি ধরনের ব্যবস্থা পর্যটনকে এগিয়ে নেওয়ার জন্য সহায়ক। পর্যটনের প্রসারের জন্য কোন বিষয়গুলো গণমাধ্যমে তুলে ধরা উচিৎ এবং; বাংলাদেশকে বিশ্বের দরবারে ইতিবাচক ভাবে তুলে ধরতে ভ্রমণ বিষয়ক সাংবাদিকতার ভূমিকা অপরিসীম। তাই বাংলাদেশ ট্যুরিজম এক্সপ্লোরার্স এসোসিয়েশন বিটিইএ আয়োজন করতে যাচ্ছে “ট্যুরিজম জার্নালিস্ট সম্মাননা ২০২১।

এক নজরে বিটিইএঃ
বাংলাদেশ ট্যুরিজম এক্সপ্লোরার্স অ্যাসোসিয়েশন (বিটিইএ), ২০১৯ সালের শুরুর দিকে গঠিত হয়। পর্যটন সেক্টরে বেশ কয়েকটি ট্রেড অর্গানাইজেশন থাকলেও সত্যিকার পর্যটন শিল্পে সুশীল সমাজের ব্যাপক অনুপস্থিতি চরমভাবে পরিলক্ষিত হয়। আর তখনি কিছু তরুন পর্যটন ব্যবসায়ী মিলে গঠন করেন বাংলাদেশ ট্যুরিজম এক্সপ্লোরার্স এসোসিয়েশন বিটিইএ । সংগঠনটির মূল লক্ষ্য স্থির করা হয়, বাংলাদেশের পর্যটন শিল্পের বিকাশ ও পুষ্টিসাধন এবং আন্তর্জাতিক পরিমণ্ডলে এর খাত ও উপ-খাত গুলোর এক্সপ্লোর করা। পর্যটনের নতুন নতুন বিষয় গুলো বা ধারা গুলোকে এক্সপ্লোর করা।

বিটিইএ শুরু থেকেই, বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয়, বাংলাদেশ পর্যটন কর্পোরেশন, বাংলাদেশ ট্যুরিজম বোর্ড, বাংলাদেশ ট্যুরিস্ট পুলিশ এবং বাণিজ্য সংগঠন বা পরিষেবা প্রদানকারী সংগঠনের সাথে চমৎকার সম্পর্ক বজায় রেখে চলেছে।
এবং বাংলাদেশের গণমাধ্যম কর্মীদের সাথে সর্বদা সুসম্পর্ক বজায় রেখে চলেছে। পাশাপাশি পর্যটন বিকাশে নানাভাবে বিভিন্ন উৎখাতের সাথে যুক্ত ব্যক্তিদের সম্মাননা ও উৎসাহ প্রদান করে আসছে।

সংজ্ঞাঃ
১. বিটিইএ ট্যুরিজম জার্নালিস্ট সম্মাননা পর্যটন ও এর সঙ্গে সম্পর্কিত প্রতিবেদন ও লেখার মাধ্যমে গুরুত্বপূর্ণ অবদানের জন্যে সংশ্লিষ্ট সাংবাদিকদের সম্মাননা প্রদান।

২. মূল্যায়ন কমিটিঃ
সাংবাদিক, পর্যটন বিশেষজ্ঞ প্রভৃতি কর্তৃক সমন্বয়ে গঠিত একটি প্যানেল সাংবাদিকদের দাখিলকৃত সমস্ত আবেদন যাচাই বাছাই ও মূল্যায়ন করে সম্মাননার জন্যে সুপারিশ করবেন।

উদ্দেশ্যঃ
১) পর্যটন সাংবাদিকতার জাতীয় গুরুত্ব।
২) পর্যটন সাংবাদিকতার আঞ্চলিক গুরত্ব।
৩) পর্যটন সাংবাদিকদের সাথে ইন্ডাস্ট্রি প্লেয়ারদের সম্পর্ক।

সম্মাননা প্রাপ্তির যোগ্যতাঃ
বাংলাদেশী নাগরিকদের জন্য পর্যটন, এভিয়েশন সাংবাদিক ও ভ্রমণ লেখক।

১) সরকার অনুমোদিত, প্রিন্ট, ইলেকট্রনিকস ও অনলাইন নুন্যতম এক বছর বা তার বেশি সময় ধরে কাজ করছেন। প্রতিষ্ঠান হতে তার প্রত্যায়ন পত্র নিতে হবে।

২) ২০২১ সালে কমপক্ষে ১০টি ট্যুরিজম ও এভিয়েশন বিষয়ে পজেটিভ রিপোর্ট প্রকাশিত হয়েছে।

৩) ২০২১ সালে ট্যুরিজমে নতুন কোন কনসেপ্ট এর উপরে নুন্যতম ৩টি প্রকাশিত সংবাদ বা প্রতিবেদন এর পেপার বা অনলাইন লিংক দেখাতে হব।

৪) আবেদন এর সাথে ভোটার আইডি কার্ড ও কর্মরত মিডিয়া কর্তৃক সাংবাদিক হিসেবে পরিচয়পত্র এর ফটোকপি দিতে হব।

৫) প্রয়োজনপূর্বক মূল্যায়ন কমিটির সাক্ষাৎ ও পরামর্শ গ্রহণ।

সম্মাননা প্রদানের সংখ্যাঃ
১. সম্মাননা পাবে মোট ২২ জন। ৭ জন টিভি রিপোর্টার, ৭ জন প্রিন্ট ও ৭ জন অনলাইন রিপোর্টার ও ১ জন সলো ট্রাভেল রাইটার্স।

পুরস্কারঃ
ক্রেস্ট, সনদপত্র এবং বিটিইএ এর সামর্থ্য অনুযায়ী আর্থিক সম্মাননা।

আবেদন কারীর বয়সসীমাঃ
যেহেতু বিটিইএ সবসময়ই তারুণ্য নির্ভর পর্যটন শিল্পকে প্রাধান্য দেয়। তাই আবেদনকারীর বয়সসীমা ধরা হয়েছে ২৫ থেকে ৪৫ বছরের মধ্যে। ৪৫ বছরের উর্ধে কেউ আবেদন করলে তা বাতিল বলে গন্য করা হবে।

আবেদন প্রক্রিয়া:
লিংকের ফর্মটি পূরন করতে হবেঃ https://forms.gle/zXVs45VHKaPBQ2eF7